ফেসবুক মার্কেটিং
ফেসবুক মারকেটং করে আয়

ফেসবুক মার্কেটিং এর নিম্নোক্ত স্ট্রাটেজিগুলা স্টেপ বাই স্টেপ ফলো করলে আপনিও হতে পারবেন একজন সফল ফেসবুক মারকেটার। এবং এর জন্য আপনাকে টাকা খরচ করে ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিতে হবে না।

কেন ফেসবুকে মার্কেটিং করবেন?

১. দেড় বিলিয়নের উপর মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে।

২. গুগলের পর ফেসবুকে দৈনিক ভিজিটরের সংখ্যা বেশী।

৩. ফেসবুকে গড়ে একজন ব্যক্তির ২০০+ ফ্রেন্ড থাকে। অর্থাৎ, আপনি সহজেই এবং কম সময়ের ভেতর ট্রাফিক পাবেন।

৪. ফেসবুকে Insights অপশন থেকে আপনি সহজেই মার্কেটিং রিপোর্ট পেতে পারেন যা ব্যবহার করা গুগল বা অন্যান্য মাধ্যম গুলার চেয়ে সহজ।

৫. এটা বহুল পরিচিত একটা সাইট।

৬. সর্বোপরি, ফেসবুকের মাধ্যমে মার্কেটিং করা অনেক সহজ।

ফেসবুকে সফলভাবে মার্কেটিং করার জন্য অনেক উপায় আছে। এখানে আমি দেখাব কীভাবে ফেসবুক পেজে টিউন করলে আপনি বেশী ভিজিটর পাবেন এবং আপনার Engagement বৃদ্ধি পাবে।

ফেসবুক পেজ টিউন ফর্মুলাঃ

১. Caption This Pic:

এটা খুবই মজার এবং সহজ। এটা ৯০% এর উপর ভিজ্যুয়াল হয়। অনেক সুন্দর সুন্দর পিকচার আপলোড করে আপনি শুধু বলে দিবেন “Caption This Pic”। Imgur থেকেও হেল্প নিতে পারেন।

২. উক্তিঃ

মানুষ সাধারণত যে কোন উক্তিতে লাইক ও শেয়ার প্রচুর পরিমাণে করে থাকে। ফলে একজন যখন শেয়ার করবে তখন তার অন্যান্য ফ্রেন্ডদের কাছেও এটি পৌঁছে যাবে। স্বাভাবিকভাবেই আপনার পেজের Engagement বৃদ্ধি পাবে।

৩. ভিডিওঃ

ফেসবুক ভিডিও আপলোড খুব পছন্দ করে। আপনি ডিরেক্ট ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করবেন। এটা খুব সহজে ভিউ হয় এবং ভিউয়ারদের পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে। তাছাড়া আপনি লাইভ ভিডিও করার মাধ্যমে অনেক অনেক ভাল সাড়া পাবেন।

৪. ফেসবুক কন্টেস্টঃ

ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের মজার মজার কন্টেস্ট আয়োজন করবেন। কোন একটা কন্টেস্ট আয়োজন করার মাধ্যমে কাউকে পুরস্কৃত করার ঘোষণা করতে পারেন। এতে আপনার Engagement অনেক বৃদ্ধি পাবে।

৫. প্রশ্ন করাঃ

সমসাময়িক বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করতে পারেন। এতে অনেকেই উত্তর দিবে। ফলে আপনার পেজের এক্টিভিটি অনেক বৃদ্ধি পাবে।

৬. অন্যদের প্রশ্ন করতে উৎসাহিত করাঃ

সবসময় আপনি প্রশ্ন করবেন না। আপনার ভিজিটরদের কাছ থেকেও প্রশ্ন নিবেন। আপনি তাদের টিপস বা সেবামূলক প্রশ্ন করতে উৎসাহিত করবেন। তারা সমাধানের আশায় প্রশ্ন করবে। যা আপনার পেজের প্রচারণায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

৭. Fill in the Blanks :

আমরা ছোটবেলায় যেমন শূন্যস্থা পূরণ করতাম। তেমনভাবে একটা বাক্য লিখবেন শূন্যস্থান রেখে এবং বলবেন এটা পূরণ করার জন্য। এতেও আপনার পেজে অনেক সাড়া পাবেন।

৮. নস্টালজিক বা ট্র্যাডিশনাল পোস্টঃ

ছোটবেলার মজার মজার স্মৃতি সবারই মনে করতে অনেক ভাল লাগে। এমন নস্টালজিক টাইপের টিউন করবেন। এটা সবার কাছেই অনেক ভাল লাগবে। তাছাড়া বিভিন্ন ট্র্যাডিশনাল দিনগুলোতে উক্ত দিবস নিয়ে টিউন করবেন। এগুলোতে সবাই সাড়া দিবে।

৯. আপনার অন্যান জায়গার জনপ্রিয় পোস্টের রিপোস্টঃ

আপনি যদি কোন ব্লগে লেখে থাকেন অথবা হতে পারে আপনার ইউটিউব ভিডিও যাই হোক না কেন অন্যান্য জায়গায় আপনার যদি জনপ্রিয় কোন পোস্ট থেকে থাকে তাহলে সেগুলো পেজে রিপোস্ট করবেন।

আশা করি, টিপস গুলো আপনাদের অনেক উপকারে আসবে। আপনাদের মতামত অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। সবার প্রতি শুভ কামনা। ধন্যবাদ।

SHARE
Previous articleসিপিএ মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয় করুন।
Next articleআপনি কি একজন সফল উদ্যোক্তা হতে চান?
আমার নাম রিয়াদ খান। আমি মূলত একজন অনলাইন মার্কেটার। ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোরসিং অর্থাৎ, অনলাইনে আয়ের ব্যাপারে এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কাজে সহায়তামূলক নির্দেশনার লক্ষ্যে এই সাইটটি তৈরি করা হয়েছে। সবাই আমাদের সাথে থাকবেন। ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

2 × one =